facebook twitter linkedin myspace tumblr google_plus digg etsy flickr Pinterest stumbleupon youtube

অ্যালবার্ট আইনস্টাইন এর মজার কাহিনী !

 অ্যালবার্ট আইনস্টাইন
অ্যালবার্ট আইনস্টাইন

জন্মঃ ১৪ মার্চ, ১৮৭৯ – মৃত্যুঃ ১৮ এপ্রিল,১৯৫৫

(১)জার্মান রাষ্ট্রদূতের সাথে আইনস্টাইন দেখা করতে যাওয়ার সময় তার স্ত্রী তাকে পোশাক পাল্টে যেতে বললে তিনি বললেন-‘তারা যদি আমাকে দেখতে চায় তাহলে আমি তো আছিই,আর তারা যদি আমার পোশাক দেখতে চায়,তাহলে আলমারি খুলে আমার স্যুটগুলো দেখিয়ে দিও।’

(২)আপেক্ষিকতার ব্যাখ্যা করতে গিয়ে একবার তিনি বলেন-‘জ্বলন্ত চুলার উপর একমিনিট হাত ধরে রাখুন,মনে হবে যেন একঘন্টা।আর চমৎকার কোনো মেয়ের পাশে একঘন্টা বসে থাকুন,মনে হবে মাত্র একমিনিট কেটেছে।আর হ্যাঁ,এটাই আপেক্ষিকতা।’

(৩)একদিন প্রিন্সটন ইউনিভার্সিটি থেকে বাসায় ফেরার সময় আইনস্টাইন বাসার ঠিকানা ভুলে গেলেন।যে ক্যাবে উঠেছিলেন,তার চালক তাকে চিনত না।তিনি জিজ্ঞাসা করলেন সে আইনস্টাইনের বাসা চেনে কীনা।চালক বললো-‘আরে!সেটা কে না জানে?প্রিন্সটনের সবাই জানে।তুমি কি তার সাথে দেখা করতে চাও?’আইনস্টাইন বললেন-‘আমিই আইনস্টাইন।বাসার ঠিকানা ভুলে গেছি।তুমি কি আমাকে পৌঁছে দিবে?’

(৪)আইনস্টাইন একবার প্রিন্সটন থেকে ট্রেনে করে যাচ্ছিলেন।একসময় টিকিট চেকার টিকিট চেক করতে করতে তার কাছে আসলো।আইনস্টাইন টিকিটের জন্য কোটের পকেটে হাত ঢুকালেন,সেখানে নাই।এবার প্যান্টের পকেটে,না,সেখানেও নেই।তিনি ব্রিফকেস খুলে দেখলেন,পাশের সিটে খুঁজলেন,কিন্তু যে লাউ,সে-ই কদু;টিকিট মিললো না।
তখন টিকিট চেকার বললেন-‘আপনাকে আমি চিনি,আমরা সবাই-ই চিনি।আপনি নিশ্চয়ই টিকিট কিনেছিলেন।আপনি এর জন্য ব্যতিব্যস্ত হবেন না।’
আইনস্টাইন মাথা নোয়ালেন।টিকিট চেকার অন্যদের টিকিট চেক করতে লাগলেন।কামরা ছেড়ে যাবার সময় হঠাৎ ঘাড় ঘুরিয়ে দেখলেন আইনস্টাইন হাত আর হাঁটুর উপর ভর দিয়ে সিটের নিচে টিকিট খুঁজছেন।
তিনি তৎক্ষণাৎ দৌড়ে গেলেন,বললেন-‘ডক্টর আইনস্টাইন,ডক্টর আইনস্টাইন,আপনি খামাখা চিন্তা করছেন,আমি আপনাকে চিনি।কোন সমস্যা হবে না।আপনার টিকিট লাগবে না!’
আইনস্টাইন তার দিকে তাকালেন এবং বললেন-‘ইয়ং ম্যান,আমিও আমাকে চিনি।কিন্তু সমস্যা হচ্ছে,আমি জানি না আমি কোথায় যাচ্ছি।’

(৫)কাজে যাওয়ার সময় আইনস্টাইনের স্ত্রী তাকে ভালো পোশাক পরে যেতে বললে তিনি বলতেন-‘কেন?সেখানে সবাই-ই তো আমাকে চেনে।’তার প্রথম বড় কনফারেন্সের সময় একই অনুরোধে তার প্রত্যুত্তর-‘কেন?ওখানে তো কেউ আমাকে চেনে না!’

আইনস্টাইনের অটোগ্রাফ-

আইনস্টাইনের অটোগ্রাফ
আইনস্টাইনের অটোগ্রাফ

আইনস্টাইনের বচনামৃত-
১।মেধাবীরা সমস্যার সমাধান করে,আর বুদ্ধিমানেরা সেগুলোর পথ আটকায়।
২।পৃথিবীর সবচেয়ে কঠিন বিষয় যা বোঝা যায় না তা হলো আয়কর।
৩।জ্ঞান অপেক্ষা কল্পনা শ্রেয়।(প্রিন্সটনে তার অফিসে ঝুলত এই সাইনবোর্ড)
৪।স্কুলে যা শেখা হয়,তার সবটুকুই ভুলে যাবার পর যা থাকে তা-ই হলো শিক্ষা।
৫।দুইটি জিনিস অসীম-একটি মহাবিশ্ব,অন্যটি মানুষের নির্বুদ্ধিতা,অবশ্য প্রথমটির ব্যাপারে আমি নিশ্চিত নই।
৬।বোকামী হলো একই কাজ বারবার করে ভিন্ন ভিন্ন ফল প্রত্যাশা করা।


সম্পর্কিত পোস্টসমূহ

সংক্ষেপে পৃথিবীর পরিচিতি

সংক্ষেপে পৃথিবীর পরিচিতি

মানুষ নয় এইবার হাঁসেরও স্নাতক ডিগ্রি লাভ

মানুষ নয় হাঁসের স্নাতক ডিগ্রি

ভারতের হায়দরাবাদে প্রকাশ্যে প্রস্রাব করলে পরানো হচ্ছে গলায় ফুলের মালা

ভারতের প্রকাশ্যে প্রস্রাব করলে পরানো হচ্ছে গলায় ফুলের মালা

টিয়া পাখির সাজে সাজতে গিয়ে কান দুটুই কেটে ফেলেছেন

টিয়া পাখির সাজে সাজতে গিয়ে কান দুটুই কেটে ফেলেছেন

দেখতে জীবিত মনে হলেও, পাঁচশত বছর আগের হিমায়িত কিশোরী

দেখতে জীবিত মনে হলেও, পাঁচশত বছর আগের হিমায়িত কিশোরী

২৫০ প্রজাতির আপেল ধরে এক গাছেই, Over 50 species of Apple a tree

২৫০ প্রজাতির আপেল ধরে এক গাছেই

বিভিন্ন দেশের বিচিত্র সব আইন

ভিন্ন দেশের ভিন্ন আইন

বিভিন্ন দেশের বিচিত্র সব আইন

বিভিন্ন দেশের বিচিত্র আইন

মানুষ এবং কুমিরের বন্ধুত্ব, Crocodal and man friendship

মানুষ এবং কুমিরের বন্ধুত্ব

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

error: Content is protected !!